আজ ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

তিন দিনের কর্মবিরতি পালন করছে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারগণ

নিজস্ব  প্রতিনিধি ঃ বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বানে শিক্ষা ক্যাডার তফসিলভুক্ত পদ থেকে শিক্ষা ক্যাডার বহির্ভূতদের প্রত্যাহার ও প্রয়োজনীয় পদ সৃজনসহ বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের সকল ন্যায্য দাবী আদায়ের লক্ষ্যে ১০, ১১ ও ১২ অক্টোবর কিশোরগঞ্জে টানা তিন দিনের কর্মবিরতি পালন করছে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি গুরুদয়াল সরকারি কলেজ ইউনিট।

মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) কলেজ প্রাঙ্গণে সকাল থেকে কর্মবিরতি দিয়ে এ কর্মসূচি পালন করছেন কলেজের অধ্যক্ষসহ বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি গুরুদয়াল সরকারি কলেজ শাখার সকল সদস্যগণ।
বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি গুরুদয়াল সরকারি কলেজ ইউনিটের সভাপতি ও কলেজের অধ্যক্ষ আ. ন. ম. মুশতাকুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন ও শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাস সত্বেও পদ সৃষ্টি করে পদোন্নতিসহ সকল দাবি মেনেও তা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না।
শিক্ষা রূপান্তরের অন্যতম কারিগর শিক্ষা ক্যাডাররা। কিন্তু প্রাপ্য অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা থেকে তাদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। অনেক কর্মকর্তা ১০-১২ বছর ধরে পদোন্নতি পাচ্ছেন না। পদোন্নতির মতো স্বাভাবিক প্রক্রিয়াতেও এই ক্যাডাররা অন্য ক্যাডারের থেকে অনেক পিছিয়ে রয়েছে, পদোন্নতির সব শর্ত পূরণ করেও পদোন্নতি পাচ্ছেন না এ ক্যাডারের সদস্যরা। দীর্ঘ সময় পর অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেওয়া হলেও যোগ্য সকল কর্মকর্তা পদোন্নতি পাননি। ২৯ বছর চাকরি করেও ‘যোগ্য’ কর্মকর্তাদের সহযোগী অধ্যাপক থেকে অবসরে যেতে হচ্ছে। ‘বর্তমানে প্রায় সাত হাজার শিক্ষা ক্যাডার পদোন্নতিযোগ্য রয়েছেন। এর মধ্যে অধ্যাপক পদে এক হাজার ২০০ জন, সহযোগী অধ্যাপক পদে তিন হাজার জন ও সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি যোগ্য রয়েছেন প্রায় তিন হাজার জন। এসব কর্মকর্তা পদোন্নতিযোগ্য পদের বেতন স্কেলের সর্বোচ্চ সীমায় আছেন, অথাৎ তাদের পদোন্নতি দিলে সরকারের বাড়তি কোনো অর্থে প্রয়োজন হবে না। কিন্তু পদোন্নতি না পাওয়ায় এই শিক্ষা ক্যাডাররা চাকরিজীবনে হতাশা প্রকাশ করছেন।
এছাড়া অন্য ক্যাডারের ৩৪ ব্যাচের কর্মকর্তারা ষষ্ঠ গ্রেডে পদোন্নতি পেয়ে পরবর্তী পদোন্নতির অপেক্ষায় রয়েছেন, ‘কিন্তু শিক্ষা ক্যাডারের ২৮ ব্যাচের অনেক কর্মকর্তা প্রভাষকই থেকে গেছেন।’
শিক্ষা ক্যাডারে প্রায় ১৬ হাজার সদস্য রয়েছেন। তারা সারা দেশের সরকারি কলেজ, শিক্ষা প্রশাসন, বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড ও অধিদপ্তরে কর্মরত রয়েছেন।
শিক্ষা ক্যাডারে ‘প্রাপ্যতা’ অনুযায়ী পদোন্নতি হচ্ছে না, পদসৃজনও হচ্ছে না- এর ‘নেতিবাচক প্রভাব’ পড়ছে শিক্ষায়। পদোন্নতি না পেয়ে শিক্ষকরা সামাজিকভাবে ‘অমর্যাদাকর’ পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন। এই ক্যাডারে দ্রুত পদোন্নতি দেওয়া না হলে এই তিন দিনের কর্মবিরতির পর আরও বড় কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তারা।
এসময় গুরুদয়াল সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মেহেদী হাসান, গুরুদয়াল সরকারি কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আজহারুল ইসলাম, রষায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক স্বপন কুমার ঘোষ, বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি কলেজ ইউনিটের কোষাধ্যক্ষ মোঃ আবুল বাসার, বিসিএস কলেজ শাখার সম্পাদক আল আমিন, প্রকাশনা সম্পাদক মোহাম্মদ ইয়াকুব আলীসহ সমিতির সকল নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category