আজ ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

মাধবদীতে স্কুল শিক্ষককে পিটিয়ে আহত থানায় অভিযোগ

মোঃ আল আমিন, মাধবদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি ঃ

মাধবদীর স্বনাম ধন্য স্কুল মাধবদী এস পি ইনস্টিটিউশন স্কুলের সহকারী শিক্ষক মোঃ ইসমাইলকে কতিপয় তিন যুবক অতর্কিত হামলা চালিয়ে মারধোর করে গুরুতর আহত করার ঘটনা ঘটেছে গতকাল ২১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যা পৌনে ৫ টায় মাধবদী পৌর শহরের মধ্য বিরামপুর মহল্লায়। এ ঘটনায় সহকারী শিক্ষক ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী তাসকিয়া খন্দকার(২৭) বাদীনি হয়ে মাধবদী থানায় কবির হোসেনের ছেলে রিশাদ (২৪)কে ১নং বিবাদী করে তিন জনের নামে অভিযযোগ দায়ের করেন। অপর বিবাদীরা হলো মাধবদী থানার মধ্য বিরামপুর (রনি ড্রাইং সংলগ্ন) মহল্লার মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে মোঃ জাকির হোসেন (৪০) ও মোঃ সেলিম মিয়া (৪৮)।
সহকারী শিক্ষক ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী তাসকিয়া খন্দকার বাদীনি হয়ে মাধবদী থানায় যে অভিযোগ দায়ের করেন তাতে বলা হয়েছে ১ নং বিবাদী রিশাদের বিরোদ্ধে তার স্বামী ইসমাইল বিভিন্ন বদনাম ছড়াইয়া বেড়াইতেছে বলিয়া প্রায় সময় শিক্ষক ইসমাইলকে বিভিন্ন ভাবে রাস্তা ঘাটে হুমকি ধমকি দিয়ে ভয় ভীতি দেখিয়ে আসিতো। ঘটনার দিন সন্ধ্যা পৌনে ৫ টায় শিক্ষক ইসমাইল মধ্য বিরামপুরের আতাউলল্লাহর ভাড়া বাসা থেকে টাকা জমা দেয়ার উদ্দেশ্যে মাধবদী বাজারের দিকে রওনা হলে মাধবদী এস পি ইনস্টিটিউশন স্কুলে পিছনের মাঠের দক্ষিন পার্শ্বের রাস্তায় পৌছালে পূর্র্ব থেকে উৎপেতে থাকা উপরে উল্লেখিত বিবাদীগন সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জন তার পথরোধ করে এ সময় সবাই ইসমাইলকে এলোপাথারী কিলঘুসি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফুলা জখম করে। এসময তারা তাদের হাতে থাকা ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প দিয়ে এলোপাথারী পিটিয়ে রক্তাত্ব জখম করে। পরে তারা ঔ শিক্ষককে জোর পুর্বক টেনে হেছড়ে ওপরে উল্লেখিত ২ ও ৩ নং আসামীর বাড়ির একটি রুমে আটকে রেখে ২ নং বিবাদী একটি লোহার কাটা যুক্ত হ্যান্ড গ্লাফস দিয়ে ডান চোখে আঘাত করে রক্তাত্ব করে। এ সময় ১ নং বিবাদী রিশাদ আহত শিকক্ষ ইসমাইলের সাথে থাকা নগদ ৪৫০০০ হাজার টাকা ও একটি এ্যানড্রুয়েট মোবাইল ফোন যার মূল্য ২০০০০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। পরে শিক্ষক ইসমাইলের স্ত্রী তাসকিয়া খন্দকার খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতা নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। এসময় ১নং বিবাদী রিশাদ ঘটনাস্থলেই বাদীনির সামনে চাপাতি দেখিয়ে শিক্ষককে কোন মামলা মোকাদ্দমা না করার জন্য হুমকি প্রদান করে চলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতা নিয়ে গুরুত্বর আহত অবস্থায় শিক্ষককে নরসিংদী সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তী করানো হয়। এ অবস্থায় বাদীনী তাসকিয়া খন্দকার তার নিজ জীবনের ও তার স্বামীর জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ব্যাপারে তিনি দ্রুত প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছেন। এ ঘটনায় মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     More News Of This Category