আজ ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কিশোরগঞ্জে ফিলিং স্টেশনে ভয়াবহ আগুন, এককর্মী দগ্ধ

নিজস্ব প্রতিনিধি ঃকিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার পাকুন্দিয়া-হোসেনপুর সড়কের তারাকান্দি এলাকায় একটি ফিলিং স্টেশনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে রাসেল আহমদ নামে ফিলিং স্টেশনের এক কর্মী দগ্ধসহ প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

১৪ জানুয়ারি রোববার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ফিলিং স্টেশনের পেট্রোলের গোডাউন থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়।
আগুনের খবর পেয়ে প্রথমে পাকুন্দিয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। আগুনে তখনো গোডাউনে একের পর এক ড্রাম জ্বলছিল। একপর্যায়ে স্টেশনের ডিপোতসহ আশপাশে ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা দেখা দেয়। এ পরিস্থিতিতে স্থানীয় লোকজনসহ কিশোরগঞ্জ সদর হোসেনপুর ও আশপাশের উপজেলা থেকে ফায়ার সার্ভিসের আরো পাঁচটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। দুই ঘণ্টার চেষ্টায় দুপুর ২টার টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে,আগুন লাগার কারণ এখনো জানা যায়নি। কেউ বলছেন বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণ হয়ে এ আগুনের ঘটনা ঘটেছে। আবার কেউ বলছেন ধূমপান অথবা বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে।

ফিলিং স্টেশনের মালিক আরিফুর রহমান মামুন জানান, গোডাউনে থাকা পেট্রোলের ৫০টি ড্রাম একের পর এক আগুনে ফুটে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তিনি ধারণা দেন, ইতোমধ্যে আগুনে তার প্রায় ৫০ লাখ টাকার অধিক ক্ষতি হয়ে গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ফিলিং স্টেশনটির পেট্রোল গোডাউনে হঠাৎ আগুন ধরে যায়। তাৎক্ষণিক আগুন নেভানোর চেষ্টা করে স্টেশনের কর্মীরা। এর মধ্যেই প্রায় ৩০ থেকে ৪০ ফুট উচ্চতায় কালো ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় লোকজন আগুন নেভানোর চেষ্টা করে এবং থানা ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়।

পাকুন্দিয়া ফায়ার সার্ভিসের দায়িত্বরত ইনচার্জ আবু বকর সিদ্দিক জানান, ফিলিং স্টেশনে আগুন লাগার খবর পেয়ে তাদের ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। তারা পানি ছিটিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছিল। পরে কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস আগুনের মধ্যে সিনথেটিক ফোম প্রয়োগ করে নিয়ন্ত্রণে আনে।

কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আবুজর গিফারি বলেন, আগুনের উৎস খুঁজতে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে এ ব্যাপারে বলা যাবে। প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা যায়নি।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান টিটু জানান, পাকুন্দিয়ার ইউএনও আজগর হোসেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া আক্তার ও পুলিশের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ফিলিং স্টেশনে একটি গোডাউন থেকে আগুন ধরে যায়। তখন সেখানে ফিলিং স্টেশনের কয়েকজন কর্মী ছুটে যায়। কিভাবে আগুন লেগেছে, এখনো জানা যায়নি। এ ঘটনায় জুয়েল ফিলিং স্টেশনর এক কর্মী দগ্ধ হয়েছেন। তার নাম রাসেল আহমেদ। তাকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category