আজ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গির্বি দেওয়া আসনে নৌকা চাই করিমগঞ্জে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে করিমগঞ্জে আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে এসব কথা বলেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার গোলাম কবির ভূইয়া।
১৫ আগস্ট মঙ্গলবার রাতে করিমগঞ্জ উপজেলার সমিতি বাজার মাঠে কিরাটন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে আলোচনাসভা দোয়া ও গণভোজ অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত আলোচনা সভায় স্বেচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার গোলাম কবির ভূইয়া তার বক্তব্যে বলেন, আগস্ট মাস শোকের মাস, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এতিম হওয়ার মাস। স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে যিনি এদেশটাকে স্বাধীন করলেন বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ১৯৭৫ সালে ১৫ই আগস্ট কালোরাতে এদেশেরই কিছু দোসরদের হাতে তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা নির্মমভাবে খুন হন। ষড়যন্ত্রকারীরা এখনো বসে নেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা যার প্রমাণ।
স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে দীর্ঘদিন পর আওয়ামীলীগ গণতান্ত্রিক উপায়ে রাষ্ট্রক্ষমতায় এসেছে। আর জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই এই দেশ আজ উন্নয়নের সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছেছে। আবারো বাংলার মানুষ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসাবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।
তিনি আরো বলেন, করিমগঞ্জ তারাইল আসনটি স্বাধীনতার পর থেকেই নৌকার দখলে থাকলেও লাঙ্গলের কাছে চুক্তিভিত্তিক গির্বি (ফত্তন) দেওয়া হয়েছিলো, যা আজ দখলদার হয়ে বসে আছেন তিনি। আমি করিমগঞ্জ তারাইলের প্রতিটি গ্রামে গ্রামে গিয়ে দেখেছি মানুষের কি দুর্দশা, তাদের বুকে লালন করা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নৌকায় ভোট নাদিতে পারায় বুকফাটা চাপাকষ্ট ও আর্তনাদ। আমি, আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট আবেদন জানাই, এই করিমগঞ্জ তারাইল আসনটি দখলমুক্ত করে, নৌকা প্রতীক দিয়ে প্রতিটি মানুষের বুকফাটা চাপাকষ্ট ও আর্তনাদ দূর করবেন।
আলোচনা সভায়, সাবেক ইউপি সদস্য রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে ও করিমগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি মেহেদি হাশেম দিপুর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন- জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোঃ আনোয়ার পারভেজ, করিমগঞ্জ উপজেলা মেম্বার কল্যাণ এসোসিয়েশনের সভাপতি আশরাফুল আলম সুমন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ফরহাদ আহমেদ টিটুলসহ আরো অনেকেই।
আলোচনাসভা শেষে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের আত্মত্যাগকারী সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনায় বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা কামাল উদ্দিন। পরে হাজারো গরীব অসচ্ছল এতিম অসহায় ও উপস্থিতির মাঝে গণভোজের আয়োজন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category