আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউ‌টে ফল চাষি‌দের শিক্ষা সফর

ত্রিশাল (ময়মন‌সিংহ) প্রতি‌নি‌ধি :কৃষি প্রযুক্তি কেন্দ্র ত্রিশালের উদ্যোগে ফল চা‌ষি শিক্ষা সফর অনু‌ষ্ঠিত হ‌য়ে‌ছে। গত বুধবার (৯ ফেব্রুয়ারি) কৃষি প্রযুক্তি কেন্দ্র ত্রিশালের উদ্যোগে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট গাজীপুরে একটি ফল চাষী শিক্ষা সফর অনুষ্ঠিত হয়।

শিক্ষা সফরে ত্রিশাল ও ফুলবাড়িয়া উপজেলার সাত জন উদ্যেক্তা অংশ গ্রহণ করেন। তারা হলেন – ত্রিশালের সামানিয়া গ্রামের মোঃ আবু সাঈদ, ত্রিশাল উজান পাড়ার রাধারমণ মোদক, ত্রিশালের পাঁচ পাড়ার এহসানুল হক, ত্রিশালের দরিরামপুরের মমিনুল ইসলাম, ত্রিশালের কইতরবাড় গ্রামের মোঃ রফিকুল ইসলাম ও ফুলবাড়িয়া উপজেলার পলাশতলীর মোঃ ইউনুস প্রমুখ।

শিক্ষা সফরের শুরুতে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউ‌টের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. বাবুল চন্দ্র সরকারের অফিস কক্ষে পরিচিতি মূলক সভায় বক্তব্য রাখেন মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. বাবুল চন্দ্র সরকার, প্রাক্তন পরিচালক ও মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্যান) ড. মদন গোপাল সাহা, কৃষি প্রযুক্তি কেন্দ্র ত্রিশালের পরিচালক কৃষিবিদ নিতাই চন্দ্র রায়, ফল চাষী ও উদ্যোক্তা মোঃ আবু সাঈদ, মোঃ রফিকুল ইসলাম ও বাবু রাধা রমণ মোদক প্রমুখ।

এ সময় বিএআরআইয়ের পক্ষ থেকে উদ্যোক্তাগণকে ফল চাষের ওপর প্রকাশিত বিভিন্ন লিফলেট, ফোল্ডার ও বুকলেট প্রদান করা হয় এবং উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে তাদের বাগানে উৎপাদিত ফল উপস্থিত বৈজ্ঞানিকদের উপহার হিসেবে প্রদান করা হয়। তারপর বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কার ১৪২৪ প্রাপ্ত লেখক কৃষি প্রযুক্তি কেন্দ্রের পরিচালক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট কৃষিবিদ নিতাই চন্দ্র রায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে তার রচিত- ছন্দে ছড়ায় স্বাধীনতা ও শেখ মুজিব ছড়াগন্থটি বিজ্ঞানীদের উপহার দেন।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্যান) ড. মোঃ জিল্লুর রহমান ও বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আনারুল ইসলাম উদ্যোক্তাগণকে ফল চাষের আধুনিক কলাকৌশের ওপর হাতে -নাতে প্রশিক্ষণ দেন। নতুন উদ্ভাবিত ফলের জাতের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। অংশ গ্রহণকারী প্রত্যেক উদ্যোক্তাকে কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে পরিচালিত প্রকল্প থেকে একটি করে বার মাসি কাঁঠাল চারা (বারি কাঁঠাল ৩) উপহার দেয়া হয়। উপহার প্রদান করায় কেজিএফের নির্বাহী পরিচালক বন্ধু বর ড.জীবন কৃষ্ণ বিশ্বাসকে ধন্যবাদ জানাই সফরকারীগন।

এ ধরনের একটি শিক্ষা সফরে সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য চীফ সাইন্টিফিক অফিসার ও
আমের জাত ও আম চাষের আধুনিক পদ্ধতি গ্রন্থের লেখক ড. বাবুল চন্দ্র সরকারকে অনেক অনেক কৃতজ্ঞতা জানান সফরকারীগণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     More News Of This Category