নরসিংদীর যে দোকানে একটি পিঠা বিক্রি হয় কুড়ি থেকে হাজার টাকায়

নরসিংদী থেকে আল আমিন: অনেকেই শুনে অবাক হয়ে যান একটি ভাপা পিঠার দাম এক হাজার টাকা হয় কি করে। অবাক হলেও এটাই সত্য যে নরসিংদীর ভেলানগর জেলখানার মোড়ে ওভার ব্রিজের নিচে মালেক মিয়ার পিঠার দোকানে প্রতিদিনই এমন অহরহ কুড়ি টাকা থেকে শুরু করে হাজার টাকা দামের পিঠা বিক্রি হচ্ছে দির্ঘ লাইন দিয়ে। এখানে দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ভাপা পিঠা বিক্রি করে আসছেন মালেক মিয়া। এই পিঠা বিক্রির লাভের টাকার এক তৃতীয়াংশ মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানায় দিচ্ছেন আর একাংশ দিয়ে চালাচ্ছেন নিজের সংসার। তার দোকানের প্রতিটি ভাপা পিঠা ২০ টাকা থেকে শুরু করে বিক্রি হয় এক হাজার টাকা পর্যন্ত। হেমন্তের সন্ধ্যার অন্ধকার যতোই বাড়ে, ততই তাকে চারপাশ থেকে ঘিরে রাখেন পিঠাপ্রেমীরা। নরসিংদী সদর উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে ভেলানগর জেলখানা মোড় ওভার ব্রিজের নিচে মালেক মিয়ার পিঠার দোকান। শীতের প্রতি সন্ধ্যায় এখানে বাড়ে পিঠাপ্রিয় মানুষের ভিড়। সন্ধ্যার পর থেকে বেচাকেনা চলে রাত নয়টা পর্যন্ত। মালেক মিয়া জানালেন, পিঠা তৈরিতে আতপ চালের গুড়া, খেজুরের গুড় ও নারিকেলের পাশাপাশি মালাই, সুগন্ধি পোলাও চাউল, কিসমিস, খেজুর, পেস্তাবাদাম, কাঠবাদাম, কাজুবাদাম ও মাওয়া ইত্যাদি উপাদান যুক্ত করা হয়। দোকানে হরেক রকম পিঠা ও নানান দামের কারণে এখানে প্রতিবছরই এমন ভিড় হয়। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেও এখান থেকে পিঠা কিনতে পেরে ক্রেতারা খুশি হন।
তিনি আরও জানান, চাহিদা অনুসারে একটি পিঠা ২০ টাকা থেকে শুরু করে এক হাজার টাকা দামের পিঠা পর্যন্ত তৈরী করে থাকেন তিনি। বিক্রি বাট্টাও বেশ ভালো। দৈনিক তিন ঘণ্টায় আট থেকে ১০ হাজার টাকার পিঠা বিক্রি করতে পারেন।
শীতের সময় পিঠা বিক্রি ছাড়া মালেক মিয়া বছরের বাকি সময় সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অটোরিকশা ও সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত পানের দোকান করে সংসার চালান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *